বিষয়:পবিত্র মহররম ও কারবালার বয়ান পর্ব- ৪

0
4
views

পবিত্র মহররম ও কারবালার বয়ান*পর্ব- ৪ *(এক নজরে হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু)*(মহাসমূদ্র থেকে দু এক বিন্দু)

১) *নাম:- হাযরাত ইমাম *হোসাইন* উপনাম:- আবু আব্দুল্লাহ।

২) *উপাধি সমূহ*:- সিবত্বে রাসূল, সায়্যেদো শাবাবে আহলিল জান্নাহ ও রায়হানাতুন্নাবী।

৩) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তরিক্বাতের ১২জন ইমামের মধ্যে তৃতীয় ইমাম ছিলেন।

৪) *পিতা*:- হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর পিতা, শেরে খোদা হাযরাত আলী রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু।

৫) *মাতা*:- হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর মাতা খাতুনে জান্নাত হাযরাত ফাতিমাতু-যযোহরা রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা।

৬) *জন্ম*:- প্রসিদ্ধ বর্ণনা অনুযায়ী চতুর্থ হিজরী সনের ৫ ই শা’বান মঙ্গলবার মদীনা শরীফে হাযরাত ইমাম হোসাইন জন্ম গ্রহণ করেন। জন্মের পর স্বয়ং হুযূর আলাইহিস সালাম তাঁর ডান কানে আযান ও বাম কানে এক্বামাত দিয়ে ইমাম হোসাইনের মুখে নববী জবান মুবারকের থুতু মোবারক দিয়ে দোওয়া করে দেন।

৭) *আক্বিক্বা*:- স্বয়ং হুযূর আলাইহিস সালাম হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর জন্মের ৭ দিনের দিন আক্বিক্বা দেন এবং আল্লাহ তায়ালার হুকুমে হোসাইন নাম রাখেন।

৮) *আল্লাহ’র রাসূল* সল্লাল্লাহু তায়ালা আলাইহি ওয়া সাল্লাম যে দিন ইন্তেকাল করেন, সেই দিন হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর ৭ বছর বয়স ছিল।

৯) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু সিলসিলায়ে আলিয়া ক্বাদেরীয়ার তৃতীয় শাইখ ও মুর্শিদ।

১০) *আকৃতি* :- হাদীসে বর্ণিত আছে যে, হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর আকৃতি সিনা মুবারাক হতে ক্বদম শরীফ পর্যন্ত দেখতে হুযূর আলাইহিস সালামের মত ছিল।

১১) *বিবাহ* :- ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ইসলাম প্রচারের খাতিরে বিশেষ প্রয়োজনে বিভিন্ন সময়ে মোট ৫ জন অতি ভদ্র ও পরহেযগার মহিলাকে বিবাহ করেন।

১২) *সন্তানাদি*:- হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর মোট ৯টি সন্তান। ৬টি পুত্র সন্তান ও ৩টি কন্যা সন্তান ছিল।

১৩) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু পায়ে হেঁটে মোট ২৫ টি হজ পালন করেছেন।

১৪) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু অত্যন্ত দানশীল ব্যক্তি ছিলেন। কখনও কখনও তিনি নিজে অনাহারে থেকে গরীব দুঃখী ও ফক্বীর মিসকিনদেরকে খাওয়াতে গর্ববোধ করতেন।

১৫) *ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর পুত্র হাযরাত ইমাম যায়নুল আবেদীন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর সন্তান দ্বারা ক্বিয়ামত পর্যন্ত পৃথিবীতে নবী-বংশ জারি থাকবে। ইনশাআল্লাহ তায়ালা।

১৬) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ৫৬ বছর ৫ মাস ৫ দিন বয়সে,৬১ হিজরী সনের ১০ই মুহররম শরীফে, ২৮ অক্টোবর ( ৬৮১ খৃষ্টাব্দে) শরীর মুবারাকে মোট ৭২টি আঘাত নিয়ে ইরাক দেশের কারবালা প্রান্তরে শাহাদাত বরণ করেন।ইন্না লিল্লাহি অ-ইন্না ইলাইহি রাজেউন।

১৭) *কাফন ও দাফন*:- হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর মাথাবিহীন দেহ মুবারাক সহ সমস্ত শোহদায়ে কারবালার দেহ মুবারকের জানাযা, কাফন ও দাফনের সমস্ত কাজ, তাঁদের শাহাদাত বরণের ৪০দিন পর, সফর চাঁদের ২০ তারিখ, হাযরাত ইমাম যায়নুল আবেদীন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু দামিশক শহর থেকে ফিরে এসে, কারবালার ময়দানে সমাপ্ত করেন ।

১৮) কারো কারো মতে ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর মাথা মুবারক মদীনা শরীফের সুবিখ্যাত কবরস্থান জান্নাতুল বাকীতে খাতুনে জান্নাত ও ইমাম হাসান রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমার মাযার শরীফের পাশেই দাফন করা হয়।আমি অধম তাঁর পবিত্র মাথা মুবারকের মাযার শরীফ অনেকবার যিয়ারত করার সুযোগ পেয়েছি।

১৯) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু কারবালা শরীফ যাওয়ার উদ্দেশ্যে মাদীনা শরীফ হতে, ৬০ হিজরী সনের ২৭শে রজব অথবা ৪ঠা শা’বানইংরেজি- ১০ ই মে (৬৮১ খৃঃ) সপরিবারে রাওয়ানা হয়ে যান। হাযরাত ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু মক্কা শরীফে শো’বে আবু তালিব নামক জায়গায় অবস্থান করেন।

২০) *একটি বর্ণনা অনুযায়ী হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর খিদমতে কুফা নামক শহরের লোকজন সর্ব মোট ১৫০ খানা চিঠি পাঠিয়ে কুফা শহর ডেকে পাঠায়।৬০ হিজরী সনের ১০ ই মাহে রমযান প্রথম চিঠি মক্কা শরীফে এসে পোঁচায়।

২১) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু মক্কা শরীফ হতে কারবালা যাওয়ার উদ্দেশ্যে ৬০ হিজরী সনের যিলহিজ্জা (কুরবানীর) চাঁদের ৩ তারিখ রাওয়ানা হয়ে যান।আর সেই দিন-ই হাযরাত ইমাম মুসলিম রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুকে কুফায় শহীদ করা হয়।

২২) কারবালা শরীফ যাওয়ার সময় ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুর সাথে মহিলা ছাড়া মোট ৯১ জন লোক ছিলেন। তার মধ্যে ১৯ জন আহলে বায়েতের লোকজন এবং ৭২ জন অন্যন্য বংশের লোকজন।

২৩) *হাযরাত ইমাম হোসাইন* রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ৬১ হিজরী সনের মহররম মাসের ২ তারিখ ২০ অক্টোবর ৬৮১ খৃঃ বৃহস্পতিবারের দিন কারবালা শরীফ পোঁছে যান।

২৪) মহররম মাসের ৭ তারিখ থেকে ইমাম হোসাইন রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ও তাঁর সঙ্গী-সাথীদের জন্য অন্যায় ভাবে পানি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

২৫) হুযূর আলাইহিস সালামের ইন্তেকালের ৫০ বছর পর ইমাম হোসাইন কারবালায় শহীদ হন।মা ফাতিমার ইন্তেকালের ৪৯ বছর ৬ মাস পর ইমাম হোসাইন কারবালায় শহীদ হন।হাযরাত আলীর ইন্তেকালের ২০ বছর পর ইমাম হোসাইন কারবালায় শহীদ হন।হাযরাত ইমাম হাসানের ইন্তেকালের ১১ বছর পর ইমাম হোসাইন কারবালায় শহীদ হন।রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম আজমাঈন।واللہ سبحانہ وتعالی و رسولہ اعلم باالصواب( বিস্তারিত জানতে দেখুন- খুতবাতে মুহাররম,তারিখে কারবালা, তাযকেরায়ে মাশায়েখে ক্বাদেরীয়া রেজবীয়া ও বারাহ তাক্বরীর ইত্যাদি )

আরয গুযারদোওয়া প্রার্থীখাদিমে আহলে সুন্নাত ওয়া জামায়াতমোঃ আলীমুদ্দিন রেজবী মাযহারী জঙ্গীপুরী।সভাপতি- মাদ্রাসা *জামিয়া গাওসিয়া রেজবীয়া*।রঘুনাথগঞ্জ, মুর্শিদাবাদ।তারিখ- ১৫/০৮/২০২১

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here