বিষয়-যায়তুন তেলের উপকারিতা-ইসলাম কি বলে এই সম্পর্কে?

0
11
views

যায়তুন একটি বরকতয় ফল। কেননা, আল্লাহ তা‘আলা সূরা তীন-এ যায়তুনের কসম করেছেন।এছাড়া রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) জাইতুন এর তেল খেতে ও মালিশ করতে বলেছেন।প্রিয় নবীজী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন:كلوا الزيتَ وادَّهِنوا به فإنه من شجرةٍ مباركةٍ‘তোমরা যায়তুনের তেল খাও এবং এর দ্বারা মালিশ কর বা শরীরে মাখ। কেননা, তা বরকতময় গাছ থেকে আসে।’ (তিরমিযী হাদীস ১৮৫১,)জায়তুন হলো আরবি শব্দ বাংলাতে যাকে জলপাই, ইংরেজিতে অলিভ অয়েল বলা হয়ে থাকে ।

এই তেল শরীরের জন্য বেশ উপকারী। রাসুল তা নিজে ব্যবহার করতেন এবং সাহাবায়ে কেরামকেও ব্যবহার করার তাগিদ দিতেন। এই ফলের গাছকে আখ্যা দিয়েছেন মুবারক গাছ হিসেবে। ইরশাদ হয়েছে, ‘আল্লাহ আসমান সমূহ ও জমিনের নুর। তাঁর নুরের উপমা একটি দীপাধারের মতো। তাতে রয়েছে একটি প্রদীপ, প্রদীপটি রয়েছে একটি চিমনির মধ্যে। চিমনিটি উজ্জ্বল তারকার মতোই। প্রদীপটি বরকতময় জয়তুন গাছের তেল দ্বারা জ্বালানো হয়, যা পূর্ব দিকেরও নয় এবং পশ্চিম দিকেরও নয়। এর তেল যেন আলো বিকিরণ করে, যদিও তাতে আগুন স্পর্শ না করে…।’ (সুরা নুর, আয়াত : ২৪)রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে ধরনের জয়তুন পছন্দ করতেন, সেগুলো আমাদের দেশের জলপাইয়ের মতো নয়। সেগুলো আরেকটু ছোট ছোট হয়। দেখতে কালো। একসঙ্গে অনেক খেয়ে ফেলা যায়। তবে পরিবেশগত কারণে আমাদের দেশের জলপাই আরবের জলপাইয়ের সঙ্গে হুবহু না মিললেও ঔষধি গুণে কিছুটা মিল পাওয়া যায়।

আসুন এবার একটু জেনে নেওয়া যাক যায়তুন তেলের মধ্যে কি কি গুনাগুন ও উপকারিতা রয়েছে ।

১. জায়তুন তেল খেলে শরীরের খারাপ কোলেস্টেরল কমে যায়।

২. জায়তুন তেল নিয়মিত চুলে ব্যাবহার করলে চুল পাকা ও চুল পড়া বন্ধ হয় ।

৩. জায়তুন তেল শরীরের এসিড পেটের গ্যাস কমায়।

৪. জাইতুন তেল লিভার পরিষ্কার রাখে ।

৫. জায়তুন তেল শরীরে বা চেহারায় ব্যবহার করলে তাড়াতাড়ি শরীরে ও চেহারায় বয়সের ছাপ পড়া থেকে বাঁচা যায় ।

৬. সাধারণত সন্তান হওয়ার পর মহিলাদের পেটে সাদা রঙের স্থায়ী দাগ পড়ে যায় । গর্ভধারণ করার পর থেকেই পেটে যায়তুন তেল মাখলে কোন জন্মদাগ পড়ে না।

৭. গোসলের পানিতে ১/৪ চামচ মিক্স করে গোসল করলে শরীরে শিথিলতা/দুর্বলতা দূর হয়।

৮. জায়তুনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে এন্টি এক্সিডেন্ট।এটি শরীরের ত্বকের সুরক্ষায় খুব কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে।

৯.জায়তুন ক্যান্সার দমনে খুব কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে ।

১০. চুল ও দাড়িতে জয়তুনের তেল মাখলে চুল এবং দাড়ি পাকার প্রবণতা কমে যায়।

১১. জায়তুন তেল চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ভূমিকা পালন করে ।

১২. জায়তুন তেল দীর্ঘদিন যৌবন ক্ষমতা ধরে রাখতে সাহায্য করে ।

১৩. জায়তুন তেল সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে ।

১৪. জায়তুন রক্তশূন্যতা প্রতিরোধে খুব কার্যকরী ভুমিকা পালন করে।

১৫. জায়তুনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আশ বা ফাইবার। যা বাতের ব্যাথা কমাতে সাহায্য করে ।এ ছাড়াও অসংখ্য উপকার যায়তুন তেলের মধ্যে রয়েছে সব বর্ণনা করা সম্ভব নয় শুধুমাত্র কিছু উদাহরন দিলাম আপনাদের বোঝার জন্য ।তাই আপনাকে বলব অবশ্যই জাইতুন তেল ব্যবহার করুন ।যায়তুনের তেল দিনে ১-২ বার খাবেন এবং শরীরে মালিশ করবেন অথবা মাথায় মালিশ করবেন । ইনশাল্লাহ বর্ণিত গুণাবলী ও অন্যান্য অনেক উপকার পাবেন ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here